শিরোনাম:
ঢাকা, সোমবার, ২৯ নভেম্বর ২০২১, ১৪ অগ্রহায়ন ১৪২৮

Daily Pokkhokal
শনিবার, ২১ আগস্ট ২০২১
প্রথম পাতা » ব্রেকিং নিউজ | রাজনীতি » বরিশাল সদর ইউএনও’র অপসারণ দাবি
প্রথম পাতা » ব্রেকিং নিউজ | রাজনীতি » বরিশাল সদর ইউএনও’র অপসারণ দাবি
৯৮ বার পঠিত
শনিবার, ২১ আগস্ট ২০২১
Decrease Font Size Increase Font Size Email this Article Print Friendly Version

বরিশাল সদর ইউএনও’র অপসারণ দাবি

---

সংবাদ সম্মেলন
বরিশাল সিটি মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আব্দুল্লাহ’র বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার করে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. মুনিবুর রহমানের অপসারণ দাবি করেছে বরিশাল বিভাগের উপজেলা পরিষদ অ্যাসোসিয়েশন ও পৌর মেয়রগণ।
শনিবার (২১ আগস্ট) বিকেলে নগরীর বরিশাল ক্লাব মিলনায়তনে সংবাদ সম্মেলন করে এ দাবি জানানো হয়।
সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করে গৌরনদী পৌর মেয়র হারিছুর রহমান ও উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মনিরুন নাহার মেরী বলেন, শােকাবহ আগস্টে গত ১৮ তারিখের রাত সাড়ে ৮টায় বরিশাল সদর উপজেলা কমপ্লেক্সে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কর্তৃক বরিশাল সিটি করপোরেশনের পরিচ্ছন্নতা কর্মীদের কাজে বাধা দান ও গুলি বর্ষণের ঘটনা ঘটে। উদ্ভূত পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে বরিশাল সিটি করপোরেশনের মেয়র করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তাকে সাথে নিয়ে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন।
কিন্তু অত্যন্ত পরিতাপের বিষয় যে, মেয়র উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার সাথে আলােচনার উদ্দেশ্যে উপজেলা কমপ্লেক্সের মূলগেট অতিক্রমকালে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার নির্দেশে তার নিরাপত্তায় নিয়ােজিত আনসার সদস্যরা সাদিক আব্দুল্লাহকে লক্ষ্য করে গুলি করে, তৎক্ষণাৎ সেখানে উপস্থিত দলীয় নেতাকর্মীরা মানব প্রাচীর তৈরি করে নিরাপদে মেয়রকে তার বাসভবনে পাঠিয়ে দেন। মেয়র সাদিক আবদুল্লাহকে গুলি করার খবর মুহূর্তে নগরব্যাপী ছড়িয়ে পড়লে হাজার হাজার জনতা ও দলীয় নেতাকর্মীরা পুনরায় উপজেলা কমপ্লেক্সের গেট গেলে তাদের লক্ষ্য করে অবিরাম গুলিবর্ষণ করতে থাকে। এতে গুলিবিদ্ধ হয় বরিশাল সিটি করপোরেশনের প্যানেল মেয়র-২ ও বরিশাল জেলা আইনজীবী সমিতির সম্পাদক এড. রফিকুল ইসলাম খােকন, মহানগর আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক জিয়াউর রহমান জিয়া, সিটি করপোরেশনের প্রশাসনিক কর্মকর্তা স্বপন কুমার দাস সহ আরাও ৬০ থেকে ৭০ জন।
আহতরা চিকিৎসার জন্য শেরে বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের উদ্দেশ্যে রওনা হওয়ার প্রাক্কালে বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশের প্রায় ২০০ দাঙ্গা পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে বেধড়ক লাঠিচার্জ শুরু করে, ফলে আরও প্রায় ৫০ জনের মত নেতাকর্মী মারাত্মকভাবে জখম হয়।
আরও বলেন, বরিশালের পুলিশ এবং স্বেচ্ছাচারী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা গত ১৯ তারিখ বরিশাল কোতোয়ালি মডেল থানায় বরিশাল সিটি করপোরেশনের মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আব্দুল্লাহকে ১নং আসামি করে ২টি মামলা দায়ের করে। যা দক্ষিণাঞ্চলবাসীর জন্য অত্যন্ত দুঃখজনক ঘটনা। শােকাবহ আগস্টের ভাবগাম্ভীর্যতা ও মর্যাদা রক্ষায় আমরা এই নিন্দনীয় ঘটনার কোন প্রতিবাদ ও বিক্ষোভে যেতে পারছি না। কিন্তু আমরা এই ন্যাক্কারজনক ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি।
আমরা দাবি জানাচ্ছি যে, অবিলম্বে বরিশাল সিটি করপোরেশনের মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আব্দুল্লাহর বিরুদ্ধে করা ২টা মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার করতে হবে, স্বেচ্ছাচারী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে অপসারণ করতে হবে এবং আমরা এই ঘটনার বিচার বিভাগীয় সুষ্ঠু তদন্তের দাবি জানাচ্ছি।
অন্যথায় শােকাবহ আগস্ট শেষে আমরা নতুন কর্মসূচি ঘােষণা করতে বাধ্য হব বলেও জানান উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও মেয়রগণ।
সংবাদ সম্মেলনে বরিশাল জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক এমপি বীরমুক্তিযোদ্ধা অ্যাডভোকেট তালুকদার মো. ইউনুসসহ বরিশাল বিভাগের বিভিন্ন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যান ও পৌর মেয়রগণ উপস্থিত ছিলেন।



আর্কাইভ

পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)