শিরোনাম:
ঢাকা, রবিবার, ১৬ মে ২০২১, ১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮

Daily Pokkhokal
সোমবার, ১৫ ফেব্রুয়ারী ২০২১
প্রথম পাতা » অর্থনীতি | জেলার খবর | ব্যাংক-বীমা » কালীগঞ্জে কৃষি ব্যাংকের সিনিয়র অফিসার মাসুদ কে নরসিংদিতে ব্যবস্থাপক হিসেবে পদায়ন
প্রথম পাতা » অর্থনীতি | জেলার খবর | ব্যাংক-বীমা » কালীগঞ্জে কৃষি ব্যাংকের সিনিয়র অফিসার মাসুদ কে নরসিংদিতে ব্যবস্থাপক হিসেবে পদায়ন
১৫৪ বার পঠিত
সোমবার, ১৫ ফেব্রুয়ারী ২০২১
Decrease Font Size Increase Font Size Email this Article Print Friendly Version

কালীগঞ্জে কৃষি ব্যাংকের সিনিয়র অফিসার মাসুদ কে নরসিংদিতে ব্যবস্থাপক হিসেবে পদায়ন

---

তৈয়বুর রহমান, গাজীপুর প্রতিনিধি:

গাজীপুরের কালীগঞ্জ উপজেলার কৃষি ব্যাংক আওড়াখালী বাজার শাখার সিনিয়র অফিসার মোঃ মাসুদ হাসান কে ম্যানেজার হিসেবে পদায়ন করে ০৮ ফেব্রুয়ারী ২০২১ তারিখে বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংক, শেখের বাজার শাখা, নরসিংদীতে পাঠানো হয়েছে।

জানা যায়, বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংক আওড়াখালি বাজার শাখায় গত ৩১ জানুয়ারী ২০১৭ সালে অফিসার হিসেবে যোগদান করেন। পরে  পদোন্নতি পেয়ে  ১৩ ফেব্রুয়ারী ২০১৮ সালে সিনিয়র অফিসার হিসাবে পদোন্নতি লাভ করেন। তার কর্ম দক্ষতা ও সততায় মুগ্ধ  হয়ে উর্দ্ধতন কতৃপক্ষ ম্যানেজার হিসেবে বদলীর আদেশ জারী করলে তিনি আওড়াখালী বাজার কৃষি ব্যাংকের সিনিয়র অফিসার থেকে ৯ ফেব্রুয়ারী ২০২১ তারিখে নরসিংদী  শেখের বাজার কৃষি ব্যাংক শাখার ব্যবস্থাপক হিসেবে যোগদান করেন। তিনি ৮ ফেব্রুয়ারী ২০২১ তারিখে আওড়াখালী বাজার শাখা থেকে ছাড়পত্র গ্রহন করেন।

কৃষি ব্যাংক আওড়াখালী শাখার গ্রহক ও বাজার ব্যবসায়ী মোঃ নাজিমউদ্দিন খোকা, আলমগীর হোসেন খান, মাসুদ পাভেজ স্বপন ও বন্ধন ডিজিটালের পরিচালক তৈয়বুর রহমান বলেন-মাসুদ সাহেব কৃষি ব্যাংক আওড়াখালী বাজার শাখার একজন দায়িত্বশীল, সৎ ও পরিশ্রমী অফিসার ছিলেন। তিনি সবসময় গ্রহক সেবায় নিজেকে বিলিয়ে দিতেন। কাজকে তিনি ভালবাসতেন। তিনি অত্র শাখার প্রতিটি গ্রহকের কাছে পছন্দের ব্যাক্তিতে পরিনত হয়েছেন। তাহার বদলির সংবাদে অনেক গ্রাহক শোকাহত। আমরা তাহার সফলতা ও উন্নতি কামনা করি।

ব্যাংক কর্মকর্তা মো :  মাসুদ হাসান বলেন- আমি আওড়াখালী বাজার কৃষি ব্যাংক শাখায় ৪ বছর চাকুরী করেছি। প্রতিটি কাজ স্বচ্ছতার সাথে করার চেস্টা করেছি। আমাদের গ্রাম বাংলার মানুষ খুবই সরল এরা এতটুকুতেই অনেক খুশি হয়। কৃষি ব্যাংক আপামর জনসাধারনের ব্যাংক। এখানে নিম্ন থেকে উচ্চ সব শ্রেনীর লোকজনই আসে। আমি চেষ্টা করেছি নিম্ন শ্রেনীর মানুষগুলো যেন সর্বোচ্চ সেবাটা পায়। কখনো কেউ আমাকে কোন কাজের কথা বললে বা সাহায্য চাইলে কখনও না করিনি তা সেটা যে কাজই হোক আর যার কাজই হোক। বিনিময়ে পেয়েছি মানুষের ভালবাসা আর প্রানভরা দোয়া যেটা আমার চাকুরী জীবনের সেরা প্রাপ্তি বলে আমি মনে করি। আমার দায়িত্ব আমি নিষ্ঠা আর সততার সাথে সবসময় পালন করার চেষ্টা করেছি। আমি সবার কাছে দোয়া চাই যেন আগামী দিনগুলোও এইভাবে মানুষের সেবায় কাটাতে পারি। ভালো থাকুক আওড়াখালীবাসী- এই কামনাই করি।



পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)